স্বাধীনতা-সংগ্রামে দ্বীপান্তরের বন্দী 
 নলিনী দাস

পড়ুন

আইয়ুবের সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের মজুর-কৃষক, ছাত্র-যুবক-মধ্যবিত্ত তথা মেহনতি মানুষ যখন ১৯৬৮-৬৯ সালে বুকের রক্ত ঢেলে গণঅভ্যুত্থানে সামিল হলো, আইয়ুবের স্বৈরাচারী সামরিক শাসনকে ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দিয়ে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র গঠনের পথে অগ্রসর হলো, তখন পূর্ব বাঙলার সেই গণতান্ত্রিক মানুষের কাছে আমাদের অতীত স্বাধীনতা-সংগ্রামের কথা তুলে ধরার প্রয়োজন বোধ করলেন আমার সহযাত্রী বন্ধুরা। প্রকৃতপক্ষে, তখন থেকেই আমার অভিজ্ঞতার আলোকে স্বাধীনতা-সংগ্রামে দ্বীপান্তরের বন্দীদের কথা লেখার চেষ্টা। 
 - বইয়ের ভূমিকা থেকে