সোহাগপুরের বিধবা কন্যারা - ১৯৭১
মামুন-উর-রশীদ
স্বরবৃত্ত প্রকাশন


শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ি উপজেলার সীমান্তবর্তী ইউনিয়নের নাম কাকরকান্দি। গারো পাহাড়ের কোল ঘেঁষে নিভৃত গ্রাম সোহাগপুর।

১৯৭১ সালে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী কিছু রাজাকারের সহযোগিতায় সোহাগপুর গ্রামে হামলা চালায়। ২৫ জুলাই ১৯৭১ পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী নির্বিচারে গুলি করে ১৮৭ জন নিরীহ গ্রামবাসীকে নির্মমভাবে হত্যা করে। স্থানীয় প্রফুল্ল দীঘি থেকে শুরু করে সাধুর আশ্রম পর্যন্ত দীর্ঘ ৬ ঘণ্টা তারা হত্যাযজ্ঞ পরিচালিত করে।

যে নারীরা জ্ঞান হারিয়েছিলেন তাঁরা জ্ঞান ফিরে খুঁজতে থাকেন প্রিয় স্বজনকে। এক সময় প্রিয় মানুষকে খুঁজে পেলেও তাঁরা তখন চলে গেছেন পৃথিবী ছেড়ে। কোনো রকম টেনে হিঁচড়ে এসব নারীরাই স্বামী, বাবা, শ্বশুর, ভাসুর কিংবা ভাইকে যেভাবে পারেন মাটি খুঁড়ে কবর দেন কাফন ও জানাজা ছাড়াই।

শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ির সোহাগপুর সেই থেকে 'বিধবাপল্লী' নামে পরিচিত। পায়ে হাঁটা পথের পাশেই ছোট প্রাচীর দেওয়া গণকবর। প্রতিটি কবরেই শহীদের নাম লেখা। সবাই পুরুষ। এক কবরে কোথাও একজন কোথাও তিনজন, কোথাও চারজন, কোথাও বা সাতজন। ইতিহাসের এক বিয়োগাত্মক ঘটনা সোহাগপুরের গণহত্যা।

- বইয়ের পটভূমি থেকে